দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গড়তে তমিজিদের মত সৎ মানুষকে রাজনীতি আসতে দিন

রাজনীতি সম্পর্কে আমাদের জানা উচিত এবং তাদের যত্ন নেয়া উচিত কারণ রাজনীতি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং অত্যন্ত জটিল। একটা ভালো রাজনীতি ভালো নেতা তৈরি করে। আর ভালো নেতা সমাজের জন্য কাজ করেন। একটা ভালো রাজনীতির ফলে দুর্নীতি রোধ করা, সুষ্ঠু নির্বাচন করা সম্ভব হয়। সমাজে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা, বিচারবিভাগকে শক্তিশালী করে তোলা, সাধারণ মানুষের সাথে নেতার সম্পর্ক উন্নয়ন করা এগুলো একমাত্র ভালো রাজনীতির বিদ্যা চর্চা দ্বারাই সম্ভব।

আর এসব একমাত্র একজন আদর্শমান রাজনীতিবিদ দ্ধারা সম্ভাব । ভাল লোক যদি রাজনীতি না আসে তাহলে রাজনীতি চলে যাবে অসৎ মানুষের হাতে। আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছিলেন, ভাল মানুষ রাজনীতি আসতে দিন,দেশে দুর্নীতির জন্য রাজনৈতিক নেতাদের দায়ী সততা ও সাহসিকতার বিরল দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন বঙ্গবন্ধু। আমরা যারা রাজনীতি করি এখান থেকে অনেক শিক্ষা নিতে পারি। তিনি বলেন, যারা রাজনীতি করি তাদের মধ্যে কয়জন বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবে আমি সৎ। আমি শতভাগ সৎ মানুষ। কয়জন বলতে পারবে, এখানেই সমস্যা।

আমরা রাজনীতিকরা যদি দুর্নীতি মুক্ত থাকি তবে দেশের দুর্নীতি আটোমেটিক্যালী অর্ধেক কমে যাবে।
সততার দৃষ্টান্ত বঙ্গবন্ধুর কথা তুলে ধরে ওবায়দুল কাদের বলেন, বঙ্গবন্ধু শিখিয়েছেন সততার আদর্শ, সততার আদর্শ বড় এসেট। একজন রাজনীতিকের জীবনের মানুষের ভালোবাসার চেয়ে বড় আর কিছু নেই, আর মানুষের ভালোবাসা পেতে হলে সৎ হতে হবে, মানুষকে ভালোবাসতে হবে, মানুষের কাছে থাকতে হবে, মাটির কাছে থাকতে হবে, এই শিক্ষা বঙ্গবন্ধু রাজনীতিকদের দিয়ে গেছেন।
আর বঙ্গবনধুর আদর্শ অনুপ্রাণীত হয়ে রাজনীতিতে এসেছেন দেশের স্বনামধন্য হক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচলাক আদম তমিজি হক। তার একটি কথা মুখ ফসকে বেরিয়ে গেছে হয়তো রাগ ক্ষোভ অনেক কিছু থাকতে পারে, তিনি রাজনীতি তে তিনি এখনোও মাসুম বাচ্চা,পরিপক্কা হতে সময় লাগবে কিন্তু গনমাধ্যম তার পেছনে উদ্দোশ্যমূলকভাবে যেভাবে লাগছে তা কখনো কাম্য নয়।

আমি একজন সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী হিসাবে এটুকু বলতে পারি গনমাধ্যম আদম তমিজি হককে নিয়ে যে আলোচনা ,সমালোচনা শুরু করছে তা কখনই কাম্য নয়। আদম তমিজি হক একজন মেহনতি মানুষের লড়াকু যোদ্ধা কোন স্বার্থছাড়া অর্থে লোভে নয় সারা জীবন মানুষের জন্য কাজ করতে চান, কাজ করে চলছেন। তিনি বলেন, মাটি ও মানুষের জন্য আমার রাজনীতি।

তিনি গরীব,দু:খি,মেহনতি মানুষসহ সমাজের উন্নয়নে সর্বদা নিজেকে উৎসর্গ করে দিয়েছেন। তেমনি ব্যবসার পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন সামজিক কর্মকান্ডে অংশ গ্রহণ করে থাকেন। বর্তমান দেশের একটি অন্যতম সমস্যা রোহিঙ্গা সমস্যা। এই বাস্তুহারা রোহিঙ্গাদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অনুদান দিয়েছিলেন তিনি।

তিনি টঙ্গী, গাজীপুরে বেশ কয়েকটি মসজিদের উন্নয়নসহ আঞ্জুমান হেদায়াতুল উম্মত এতিমখানার তত্ত্বাবধানের দায়িত্ব নিয়েছে।প্রতিবছর শীতার্ত মানুষের জন্য কম্বল বিতরণ করেন। এছাড়াও কক্সবাজারের হিমছড়িতে তমিজুল হক কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ প্রতিষ্ঠা করেছেন।
আসলে আদম তমিজি হক, আনিসুল হক সোহেল তাজ এরা নিজের ব্যাংক ব্যালেন্স ভারি করার জন্য রাজনীতি আসেনা এরা দুর্নীতিগ্রস্ত সমাজকে দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গড়তে। কারণ এদের ব্যাংক ব্যালেন্সের অভাব নেই এরা আসে সমাজের পরিবর্তনের অংশীদার হতে। এদের রাজনীতিতে আসার সুযোগ দিন, সমাজ পরিবর্তন হয়ে যাবে।

লেখক: শাহআলম বেপারী
সম্পাদক : সময় ট্রিবিউন

শেয়ার করুন