আড্ডা, গল্পে জমে উঠেছে জবি টিএসসি

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থীদের প্রস্তাবিত শিক্ষক-ছাত্র কেন্দ্রের (টিএসসি)সংস্কার কাজ ও ফ্রী ওয়াইফাই ছাত্রলীগ উদ্বোধন করার পর জমে উঠেছে চায়ের  আড্ডা ।কারণ তরুণদের কাছে চায়ের দোকান মানেই প্রিয় আড্ডার জায়গা। ক্লাস থেকে বেরিয়ে একটু রিফ্রেশ হওয়া চাই। যাওয়া চাই চায়ের দোকানে। সেখানে সদলবলে চা খাওয়ার সাথে যে জমিয়ে আড্ডা হবে—সে কথা বলাই বাহুল্য। দোকানের চা বিক্রেতা এ আড্ডাবাজদের ‘মামা’, বলা যায় ‘গণ মামা’ হয়ে ওঠেন। আর সেই আড্ডার সাথে থাকে ফ্রী ওয়াইফাই তাহলে তো আর কোন কথাই নেই।

 

হ্যা এমনই চিত্র সরেজমিনে দেখা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থীদের প্রস্তাবিত শিক্ষক-ছাত্র কেন্দ্রের (টিএসসি)তে, এখানে কেউ চায়ের আড্ডায় ঝড় তুলছেন আবার কেউ ফ্রী ইন্টারনেট ব্যবহার ব্যস্ত রয়েছেন।
দীর্ঘদিন ধরে পরিত্যক্ত ও ব্যবহারের অনুপযোগী টিএসটির সৌন্দর্য বর্ধন করে ছাত্র-শিক্ষকদের ব্যবহার উপযোগী করেন ছাত্রলীগ।
উল্লেখ্য ,২০১৪ সালের মার্চ মাসে হল আন্দোলনের সময় ক্যাম্পাসের প্রধান ফটকের বিপরীত দিকে পরিত্যক্ত জায়গায় টিএসসি ঘোষণা দেয় শিক্ষার্থীরা। এরপর থেকে বিভিন্নভাবে অব্যবস্থাপনার কারণে টিএসসির কার্যক্রম গড়ে ওঠেনি। এমনকি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনও এর সংস্কারে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শাখা ছাত্রলীগের নতুন কমিটির সভাপতি তরিকুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদীন রাসেল জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক যুগ পূর্তিতে শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নিকট ১১ দফা দাবি তুলে ধরেন। এর মধ্যে টিএসসির বিষয়টিও অর্ন্তভুক্ত ছিল। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় ছাত্রলীগ নিজ উদ্যোগে এ সংস্কার কাজ  করেন,

শেয়ার করুন