ছাতকে এলিট ফর্সের নিরাপত্তা কর্মীকে পিটিয়ে গুরতর আহত

ছাতক প্রতিনিধিঃ ছাতকে লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কোম্পানীতে এক নিরাপত্তা কর্মীকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরতর আহতের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বুধবার রাতে দায়িত্ব পালনরত এলিট ফর্সের নিরাপত্তা কর্মী মনসুর আলমের উপর লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কোম্পানীর গাড়ি চালক শাহ আলম ও প্যাকিং প্লান্টের শ্রমিক শহীদুল ইসলাম পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালিয়ে মারধর করে। গুরতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ ঘটনায় ছাতক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। মনসুর আলম সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার উস্তার আলীর ছেলে। অভিযুক্ত গাড়ি চালক শাহ আলম পৌর শহরের শহরের লেবারপাড়া এলাকার মৃত আরব আলীর ছেলে। শহীদুল ইসলামের বৃত্তান্ত জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান, মঙ্গলবার রাতে নিরাপত্তা কর্মী মনসুর আলম শহরের দক্ষিণ বাগবাড়িস্থ লাফার্জের অতিথি ভবনে দায়িত্ব পালন করছিলেন। নেশাগ্রস্থ অবস্থায় গাড়ি চালক শাহ আলম ও প্যাকিং প্লান্টের শ্রমিক শহীদুল ইসলাম তাকে অতর্কিত ভাবে মারধর করেন। এক পর্যায়ে তাকে গুরতর অবস্থায় উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়।

এলিট ফর্সের সিলেট জোনাল অফিসের পরিচালক আলী ওয়াসিকুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মনসুর আলম তার দায়িত্ব পালনকালে লাফার্জের গাড়ির ড্রাইভার ও প্যাকিং প্লান্টের শ্রমিক শহীদুল ইসলাম তাকে অতর্কিত ভাবে মারধর করে গুরতর আহত করেন। এ ঘটনায় ছাতক থানাতে একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। এবং লাফার্জ কতৃপক্ষের সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে। তিনি আরও বলেন, এর আগেও আলী নামের আরেক নিরাপত্তা কর্মীর সাথে তাদের খারাপ আচরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এব্যাপারে ছাতক থানা ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান ছুটিতে থাকায় যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

শেয়ার করুন